চীনের পরে বরিশাল নগরীর সড়কে থ্রিডি জেব্রা ক্রসিং:উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনে প্রকাশিত সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বরিশাল জেলা প্রতিনিধি,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন::বরিশাল শহরের সড়কে এই প্রথমবারের মতো আঁকা হয়েছে থ্রিডি মানের জেব্রা ক্রসিং। শহরের জিলা স্কুলের মোডে রাজা বাহাদুর সড়কে মুখে এটি আঁকা হয়েছে। শুক্রবার রাতে এই জেব্রা ক্রসিং উদ্বোধন করে বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ।

সম্ভবত বাংলাদেশে সর্বপ্রথম বরিশাল শহরের বাসিন্দারাই থ্রিডি জেব্রা ক্রসিং দেখতে পেয়েছেন। তবে এই ধরনের জেব্রা ক্রসিং চীনের রাজধানী বেউজিংয়ের সড়কে অনেক আগেই আঁকা হয়।

সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন- এই ধরনের জেব্রা ক্রসিং অনেকটা দূর থেকেও প্রত্যক্ষ করা যায়। বিশেষ করে দূরের যানবাহন থেকে এটি দেখলে উঁচু মনে হবে। ফলে চালকেরা ওই স্থানে তাদের গাড়ির গতি কমিয়ে আনতে বাধ্য হবেন। এতে স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থী ও পথচারী চলাচলে সুবিধা হবে ও দুর্ঘটনা কমবে বলে মনে করেন তিনি।

আধুনিক মেশিনের সহায়তায় এই জেব্রা ক্রসিং পর্যাক্রমে শহরের জনগুরুত্বপূর্ণ প্রতিটি সড়কসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন।

এছাড়া বরিশাল নগরীর জনগুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন স্থানে প্রথমবারের মতো দিকনির্দেশনামূলক সাইনবোর্ড বসানোর কার্যক্রমও শুরু করেছে বিসিসি। এর ফলে নির্দিষ্ট গন্তব্যে যেতে কাউকে এখন অযথা ঘোরাঘুরি করার প্রয়োজন হবে না বলে আশাপ্রকাশ করেছেন মেয়র।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের উন্নয়নকাজ অব্যাহত থাকবে। আমরা আমাদের সেতুগুলোর উন্নয়ন করে যাচ্ছি। এটা চলমান থাকবে। প্রায় সারা বাংলাদেশে একটা যোগাযোগ নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করছি। সড়ক, নৌ, রেল ও বিমান মিলে সব দিক থেকে মানুষের যোগাযোগটা যাতে সহজ হয়ে যায় সেই চেষ্টা করছি। আমরা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। আরও এগিয়ে নেবো।’

অনুষ্ঠানে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান।

কাঁচপুর, দ্বিতীয় মেঘনা, গোমতী সেতু নির্মাণ প্রকল্প পরিচালক আবু সালেহ মো. নুরুজ্জামান জানান, নবনির্মিত কাঁচপুর ব্রিজ ইতোমধ্যেই যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। নতুন দু’টি সেতু চালু হলে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিশেষ করে ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা কিছুটা হলেও আরামদায়ক হবে।


উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনে প্রকাশিত সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •