২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
Home » Parallax Page » জাতীয় » পুলিশের বিরুদ্ধে নারীর বিস্ফোরক স্ট্যাটাস, সিলেট প্রশাসনে তোলপাড় !:উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন

পুলিশের বিরুদ্ধে নারীর বিস্ফোরক স্ট্যাটাস, সিলেট প্রশাসনে তোলপাড় !:উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনে প্রকাশিত সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন ::- তাসলিমা বেগম। স্বামীকে নিয়ে বেড়াতে এসেছেন সিলেটে। এসে বিব্রতকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছেন। পুলিশের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের কথা জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তুলে ধরেছেন। সমগ্র ফেসবুক দুনিয়ায় বিস্ফোরিত হয়ে পড়েছে। এনিয়ে পুলিশ প্রশাসনে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। ইতিমধ্যে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে তদন্ত শুরু হয়েছে। দোষী পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, ময়মনসিংহ থেকে তাসলিমা নামের ওই মহিলা ও তার স্বামী সিলেটে বেড়াতে এসেছিলেন। গত বুধবার সকালে সিলেট থেকে ফেরার পথে নগরীর চৌহাট্টায় পুলিশের কবলে পড়েন। স্বামী-স্ত্রী দু’জনকে আলাদা আলাদা ভাবে জেরা করে। এরপর টাকা পেয়ে তাদের ছেড়ে দেয়। আগে থেকেই ময়মনসিংহগামী বাসের টিকিট কনফার্ম থাকায় তারা এ নিয়ে বেশি কথা বাড়াননি। তবে- নিজের ফেসবুক আইডিতে তাসলিমা বিষয়টি তুলে ধরেছেন।

স্ট্যাটাসের একাংশে তাসলিমা উল্লেখ করেন- ‘সিএনজিতে ৫ জন পুলিশ। আমার সঙ্গে আমার সাহেব ছিল। সিএনজি দাঁড় করিয়ে আমার সাহেবকে নিয়ে গেলো তাদের সিএনজিতে। বলতাছে আপনি একটু আমাদের সঙ্গে আসেন কথা আছে। ওরে নিয়ে গিয়ে আমাকে প্রশ্ন করা শুরু, আপনার কি হয় ওনি? বিয়ে হলো ক’দিন? ছেলে-মেয়ে ক’জন? কি করেন? এখানে কেন আসছেন? তখন আবার চলে গেলো আমার সাহেবের কাছে। ওরেও গিয়ে একই কথা জিজ্ঞেস করা হলো কিন্তু আমার আড়ালে।’

স্ট্যাটাসে তিনি আরো উল্লেখ করেন- ‘নাস্তা না করেই গাড়িতে উঠলাম। আমার সাহেব আমার সঙ্গে একটা কথাও বলে না। ১২টা বাজে তাও কথা বলে না। আমি বার বার ওরে স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছি কাজ হয়নি। দুপুরে খাবার বিরতি দিলো। নামলাম খাওয়ার জন্য। ওরে বললাম দেখো আমার সঙ্গে কথা বলছো না কেন? আমার খুব কষ্ট হচ্ছে। আমার সঙ্গে এমনটা করো না। তখন দেখি ওর চোখ ভিজে গেছে। ও বলতাছে জানো আমাকে কি জিজ্ঞেস করেছে? আমাকে বলতাছে কত টাকায় ভাড়া করে নিয়ে আসছেন? (যখন লিখছি তখনও চোখ দিয়ে সমানে পানি পড়ছে।) আমার সাহেব তখন বললো দেখুন আমার বউটা খুবই ভালো পরিবারের মেয়ে আর আমিও ওরে খুবই যত্ন আর সম্মানে রাখি, আমাকে যা খুশি বলেন আমার বউটাকে নিয়ে কিছু বলবেন না।’

তিনি উল্লেখ করেন- ‘আমি ঘুরতে পছন্দ করি। আমার ছেলে ইন্টারে পড়ে এখনো আমাকে কাবিননামা নিয়ে ঘুরতে হবে। আমি আর কি কি লিখবো? তবে মরে গেলেও সিলেট কোনোদিনই আর যাবো না।’

তার এমন স্ট্যাটাস সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তুলে ধরলে সর্বত্র তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি পুলিশের ঊর্ধ্বতনদের কানেও পৌঁছেছে। এ নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুছা।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে আমাদের কাছে বিষয়টি স্পট হয়েছে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিত্বে আমরা ঘটনায় জড়িত পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছি। যা সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরা হবে।

তিনি যোগ করে বলেন, আমরা পুলিশ ডিপার্টমেন্টের দুর্নাম যারা করেছে, তাদের আমরা রাখতে চাই না। তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেব। ইতিমধ্যেও ব্যবস্থা নিয়েছি। এসব ঘটনায় ভোক্তভোগীরা সঠিক ও ন্যায্য বিচার পাবেন।
…………………………………………………………………………………………………………………………………………… বি: দ্র:: আপনাদের যে কোনো দুঃখ-দুর্দশার সংবাদ জানাতে পারেন আমাদের, আমাদের সাহসী টিম চলে যাবে আপনার দ্বার প্রান্তে । ধন্যবাদ – প্রয়োজনে :: +৮৮০১৭১৬২০৪২৪৮ upnews24x7.com most google ranking bengali news portal from Bangladesh.


উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনে প্রকাশিত সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।