রাজশাহীতে ভুল সিগন্যালই ছিল দূর্ঘটনার মূল কারন:উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন

সংবাদটি শেয়ার করুন
          
 
596  
596
Shares

স্টাফ রিপোর্টার,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন:: রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মহাসড়কে পুলিশের হঠাৎ সিগন্যালে থামতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে একে একে চারটি যানবাহন।

রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কে উপজেলার চাপাল এলাকায় মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ দুর্ঘটনায় প্রাণহানি না হলেও কয়েকজন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে দুইজনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা হলেন- উপজেলার খারিজাগাতি গ্রামের ট্রলিচালক কোরবান আলী (৩০) এবং পাকড়ি এলাকার মোটরসাইকেল চালক তোফাজ্জল হোসেন (৩৫)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দামকুড়া থানার এসআই আবদুল আজিজের নেতৃত্বে চাপাল পুলিশের একটি দল মহাসড়কে যানবাহন থামিয়ে কাগজপত্র দেখার নামে টাকা আদায় করেন।

 

সকালে রাজশাহীগামী ইটবোবোঝাই একটি ট্রলি চালককে থামাতে সিগন্যাল দেয় পুলিশ। এ সময় হঠাৎ থামাতে গিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জগামী বাসের সঙ্গে ট্রলি ধাক্কা খায়। তখন বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দিয়ে গাছে মেরে দেয়। বাসের ধাক্কা খেয়ে মোটরসাইকেল রাস্তার ওপর ছিটকে পড়ে। আর একটি প্রাইভেটকার এসে ট্রলির সঙ্গে ধাক্কা খায়। এ ঘটনায় চারটি যানবাহন দুমড়ে-মুচড়ে যায়।

এদিকে এ ঘটনার বিস্তারিত তথ্যর জন্য মুঠোফোনে রাজশাহী দামকুড়া থানার এসআই আবদুল আজিজের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অর্থ আদায়ের কথা অস্বীকার করে বলেন, যা শুনেছেন তা সঠিক না। আমি দামকুড়া থানার অধীনে চেকপোস্ট বসাই। সড়ক দুর্ঘটনাটিও হয়েছে দামকুড়া থানা এলাকায়। মহাসড়কে অবৈধ যানবাহন রোধ করতে এই চেকপোস্ট বসানো হয়ে থাকে বলে জানান তিনি।

তবে অত্র এলাকার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপস্থিত প্রত্যক্ষদর্শীরা আরোও জানান- রাজশাহী দামকুড়া থানার গুটিকয়েক পুলিশ অফিসার প্রায়ই নসিমন,করিমন,ট্রাক্টর, ও ভুটভুটি থামিয়ে নিয়মিত চাঁদা তুলে থাকেন। আর এই কারনে অনেক সময় মোটরসাইকেল আরোহীদেরকেও মোটরসাইকেলের কাগজপত্র তল্লাশির নামে হয়রানী করতে দেখা যায়।


রাজশাহীতে ভুল সিগন্যালই ছিল দূর্ঘটনার মূল কারন:উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন

সংবাদটি শেয়ার করুন
          
 
596  
596
Shares