রাজশাহীর সমালোচিত ওসি গোলাম মোস্তফা বারংবার আরএমপিতেই

রাজশাহীর সমালোচিত ওসি গোলাম মোস্তফা বারংবার আরএমপিতেইনিজস্ব প্রতিবেদক,উত্তরবঙ্গ প্রতিবেদন :: রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের একজন ওসি গোলাম মোস্তফা। কখনো কখনো থানায় বসে যুবলীগ নেতার জন্মদিন পালন করে আবার কখনো এজাহারভুক্ত আসামীকে নিয়ে ইফতারি করে আবার কখনো এজাহারভুক্ত আসামী বাদে একই নামের অন্য নামের মানুষকে ধরে এনে মামলা দিয়েও আলোচনা সমালোচনার পাত্র হয়েছেন বারবার। সমালোচনা তার পিছু ছাড়েনি নাকি তিনি সমালোচিত হতেই ভালবাসেন তা কারোও বোধগম্য নয়। তারপরেও তিনি রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের গুরুত্বপূর্ণ পবা থানায় অধিষ্ঠিত আছেন।

রাজশাহীতে ওসি গোলাম মোস্তফার ভুলে রাবি ছাত্রের দুর্বিষহ জীবন

সরেজমিন অনুসন্ধানে উঠে এসেছে এমন কিছু চিত্র যেখানে ওসি মোস্তফা এখন আরোও বেশী বেপরোয়া। সম্প্রতি রাজশাহীর পবা এলাকার পুকুর খনন নিয়ে স্থানীয় দৈনিক পত্রিকা সহ জাতীয় পত্রিকাগুলোতে কয়েকদফা সংবাদ প্রকাশ হলেও যথাযথ কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেননি এখনোও। গত ২৩শে আগস্ট ২০২০ এ দেশের শীর্ষ স্থানীয় জাতীয় দৈনিক পত্রিকা প্রথম আলো শিরোনাম করেছে – পুকুর খননের কারনে বিপাকে ২ লাখ মানুষ।

দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকার লিংক – পুকুর খনন করায় ডুবে থাকে সড়ক, ভোগান্তি দুই লাখ মানুষের

এ বিষয়গুলো নিয়ে পবা এলাকার কৃষক আতর আলী বলেন – রাজশাহী পবা এলাকায় যে পরিমান পুকুর খনন হয়েছে সেই প্রতিটি পুকুর খনন বাবদ ওসি স্যার ২০ হাজার টাকা করে নিয়েছেন ।

পবা থানাধীন বড়গাছি এলাকার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক বলেন – লকডাউনে শুধুমাত্র রাত করেই পবা অঞ্চলে প্রায় ১৫০টির উপর পুকুর খনন করা হয়েছে। এ বিষয়ে প্রতিবাদ করতে যেয়ে আমি অনেক ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছি।তাই এখন আর প্রতিবাদ করিনা।

রাজশাহীতে অধ্যক্ষকে পুকুরে ফেলার ঘটনায় বিক্ষোভ

নাম না প্রকাশ করার স্বার্থে রাজশাহী পবা অঞ্চলের বেশ কয়েকজন ব্যাক্তি বলেন – গত ১১ মার্চ ২০২০ তারিখে রাজশাহী পবায় বাস ও মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়। নিহত ঐ ব্যাক্তির নাম আব্দুস সালাম। তার বাড়ি বিদিরপুর মধুসূদন গ্রামে।এ সময় আটক করা হয় বাসকে। কিন্ত মুন্না এন্টারপ্রাইজ নামের ঐ বাস কর্তৃপক্ষের কাছে মোটা অংকের টাকা হাতিয়েও নিয়েছিলেন ওসি গোলাম মোস্তফা।

ওসির কক্ষে যুবলীগ নেতার জন্মদিন

এছাড়াও অনুসন্ধানে আরো জানা যায় – ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে রাজশাহী পলেটিকনিক্যাল ইন্সটিটিউটে এক শিক্ষককে পুকুরে ফেলে দেয়ার ঘটনার রাতেই রাজশাহী নগরীর বিভিন্ন ছাত্রাবাস থেকে ২৫ জনকে আটক করে থানায় আনা হলেও প্রকৃত আসামীদের পরবর্তীতে রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ আটক করে।কিন্তু পরে গোপনসুত্রে জানা যায় – চন্দ্রিমা থানা কর্তৃক আটককৃত ১২ জন ছাত্রের অভিভাবকের কাছ থেকে প্রায় ১০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন ওসি গোলাম মোস্তফা।।

২য় পর্বে বিস্তারিত……………………

সংবাদটি শেয়ার করুন

Uttorbongo Protidin

Uttorbongo Protidin ।। 24x7upnews.com Covering all latest Breaking, Bangla, Live, International and Entertainment news.