স্বস্তির নি:শ্বাস ফেলেছে রাজশাহীর দুর্গাপুরবাসী,কিন্তু জানেন কেন..উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনে প্রকাশিত সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রাজশাহী প্রতিনিধি :স্বামীর লাথিতে গর্ভের সন্তানের মৃত্যু, ওসি নেননি মামলা’ শিরোনামে বুধবার দৈনিক যুগান্তরের শেষ পৃষ্ঠায় সংবাদ প্রকাশের পর তোলপাড় শুরু হয়েছে। এ ঘটনায় রাজশাহীর পুলিশ প্রশাসন নড়েচড়ে বসেছে। দুর্গাপুর থানার ওসি আবদুল মোতালেবকে বুধবার সকালে পুলিশ সুপার (এসপি) কার্যালয়ে বদলি করা হয়েছে।

রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) ইফতেখায়ের আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, সকালে ওসি মোতালেব সম্পর্কে সংবাদটি নজরে আসার পর এসপি মো. শহীদুল্লাহ তাকে বদলি করেন। ওসি মোতালেবকে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে বদলি করা হয়েছে। তিনি বুধবার দুপুরেই এসপি কার্যালয়ে যোগদান করেছেন।তবে তাকে জনস্বার্থে বদলি করা হয়েছে বলে জানান পুলিশের এ মুখপাত্র।

উল্লেখ্য, রাজশাহীর দুর্গাপুরের মহিপাড়া এলাকার বাসিন্দা দুবাই প্রবাসী সোহেল রানা সম্প্রতি দেশে ফেরেন। এরপর তিনি তার স্ত্রী শিমু ইয়াসমিন লিপিকে পেটে লাথি দিয়ে তার গর্ভপাত ঘটান। এ ঘটনায় লিপি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন ছিলেন।

গত ২ জুলাই লিপি দুর্গাপুর থানায় মামলা করতে গেলে ওসি মোতালেব মামলা নেননি। বরং নির্যাতিত লিপি এবং তার পরিবারের সদস্যদেরকে বিষয়টি মীমাংসা করে নিতে চাপ সৃষ্টি করেন ওসি মোতালেব।

এছাড়া ওসির বিরুদ্ধে ‘উৎকোচ’ নিয়ে সোহেলকে দেশ ছাড়তে সহযোগিতা করার অভিযোগ ওঠে।সম্প্রতি ওসি মোতালেবের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত আসামিদের সঙ্গে গোপন বৈঠকেরও অভিযোগ ওঠে। এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ সে সময় বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়।


উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনে প্রকাশিত সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •