বিশেষ বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় সন্মানিত পাঠক, আপনি কি উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের নিয়মিত পাঠক? আপনি কি এই পত্রিকায় লিখতে চান? কেন নয় ? সমসাময়িক যেকোনো বিষয়ে আপনিও ব্যক্ত করতে পারেন নিজের চিন্তা, অভিমত, পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ। স্বচ্ছ ও শুদ্ধ বাংলায় যেকোনো একটি সুনির্দিষ্ট বিষয়ে  লিখে পাঠিয়ে দিতে পারেন ইমেইলে কিংবা ফোন করেও জানাতে পারেন আপনাদের।  আমাদের যে কোন সংবাদ জানানোর ৩টি মাধ্যম।🟥১। মোবাইল: ০১৭৭৭৬০৬০৭৪ / ০১৭১৫৩০০২৬৫ 🟥২। ইমেইল: upn.editor@gmail.com🟥৩। ফেসবুক : facebook.com/Uttorbongoprotidin  
আজ ১০ মে ২০২১ সোমবার ১১:২৬ অপরাহ্ন রাজশাহী,বাংলাদেশ ।। ইংরেজীতে পড়ুন উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন Bengali Bengali English English

Advertisements
নিজস্ব প্রতিবেদক, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন ::
দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মহাসড়ক ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক। ময়মনসিংহ, জামালপুরসহ উত্তরবঙ্গের প্রায় ২৩টি জেলার যানবাহন এই মহাসড়ক দিয়ে চলাচল করে। ঈদসহ যেকোনো উৎসবের ছুটিতে এই সড়কে যানজট স্বাভাবিক ঘটনা ছিল। কিন্তু এবার ঈদুল ফিতরে মহাসড়কের টাঙ্গাইল অংশে চার লেনের সুবিধা এবং টাঙ্গাইল পুলিশ প্রশাসনের ব্যাপক তৎপরতা থাকায় যানজটের সম্ভাবনা ছিল না বললেই চলে।

সবকিছু ঠিকঠাকভাবেই চলছিল। কিন্তু ঈদের আগের দিন গত ৪ জুন মঙ্গলবার সকালে সৃষ্টি হয় ভয়াবহ যানজট। বঙ্গবন্ধু সেতু থেকে টাঙ্গাইলের পাকুল্লা পর্যন্ত প্রায় ৪০ কিলোমিটার এলাকায় দীর্ঘ যানজটে চরম ভোগান্তির শিকার হয় ঘরমুখো হাজার হাজার মানুষ। অতিরিক্ত গাড়ির চাপে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম প্রান্তে সিরাজগঞ্জ এলাকার যানজটের কারণে টাঙ্গাইল অংশেও সেই যানজট ছড়িয়ে পরে। সেতুতে গাড়ি স্থির থাকায় বন্ধ হয়ে যায় টোল আদায় কার্যক্রম।

এদিকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানবাহনের বাম্পার টু বাম্পার আটকা থাকায় অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেন যাত্রীরা। তাদের মধ্যে কিছু মানুষ উত্তেজিত হয়ে টাঙ্গাইলের রসুলপুর এলাকায় প্রশাসনের একটি গাড়িতে আগুণ ধরিয়ে দেন ও আরেকটি গাড়ি ভাঙচুর করেন। অন্যদিকে গাজীপুর থেকে কুড়িগ্রামগামী এক অন্তঃসত্ত্বা নারী যানজটে আটকে পড়ে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্বপাড়ে গোলচত্বর এলাকায় মেয়ে সন্তান প্রসব করেন। আবার মহাসড়কের ঢাকাগামী লেন ফাঁকা দেখে ব্যাট-বল হাতে নিয়ে রাস্তায় নেমে ক্রিকেট খেলেন কয়েকজন যাত্রী।

ওই বিষয়গুলো গণমাধ্যমে তাৎক্ষণিক ব্যাপকভাবে প্রচার হলে শুরু হয় আলোচনা সমালোচনা। পরে মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান মহাসড়ক পরিদর্শন এসে আগুন দেওয়ার বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সাংবাদিকদের জানান।

ওই দিন ঢাকা থেকে ভূঞাপুরগামী আজহারুল ইসলাম তালুকদার নামের এক যাত্রী পরিবারসহ যানজটে আটকা পরেছিলেন টাঙ্গাইলের রাবনা বাইপাস এলাকায়। তিনি বলেন, ‘আমরা একটানা প্রায় ৫ ঘণ্টা জ্যামে ছিলাম। আামদের অদূরেই কিছু মানুষ উত্তেজিত হয়ে টায়ারে ও গাড়িতে আগুন দেয়। তাদের কথা বার্তা এরকম ছিল যে, আমরা বাড়ি যেতে পারছি না, তাই আর কাউকেই যেতে দেব না।’

গত মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী হানিফ পরিবহনের এক বাসচালক এলেঙ্গা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বলেন, ‘শুনলাম সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে গাড়ি টানতে পারছে না। তাই আমরাও যেতে পারছি না। তবে রাস্তায় পুলিশের ভূমিকা ভালো।’

এ বিষয়ে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ (বিবিএ) এর বঙ্গবন্ধু সেতুর এলাকার নির্বাহী প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার আহসানুল কবির পাভেল বলেন, গত ৪ জুন সকাল ৬টা ৫০ থেকে ৯টা ২০ মিনিট পর্যন্ত আমরা টোল আদায় করতে পারি নাই। কারণ অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে সিরাজগঞ্জ এলাকায় গাড়ি পাস হচ্ছিল না। সেতুর ওপর গাড়ি আটকে স্থির হয়ে দাঁড়িয়ে ছিল।’

আহসানুল কবির পাভেল আরও বলেন, ‘সেতুর পশ্চিম প্রান্তে পুলিশের তৎপরতা নিয়ে আমি সন্দিহান।’

বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশারফ হোসেন বলেন, ‘আমরা তখন ডিউটিতে ছিলাম। সেতুর পশ্চিম প্রান্ত, সিরাজগঞ্জ এলাকার কড্ডার মোড়, হাটিকমরুল ও নলকা ব্রিজে যানজটের কারণে আমাদের পূর্ব প্রান্তেও তীব্র যানজট লাগে। কারণ পূর্ব প্রান্তের গাড়িগুলো পশ্চিম প্রান্তে ঢুকতে পারছিল না।’

এদিকে বঙ্গবন্ধু সেতু কর্তৃপক্ষ জানায়, স্বাভাবিকভাবে প্রতিদিন সেতু দিয়ে ১৪-১৫ হাজার যানবাহন পাড়াপাড় হয়ে থাকে। কিন্তু ঈদে সেটা দুই থেকে তিন গুণ বেড়ে যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আজ ৭ জুন ২০১৯ শুক্রবার ১১:৫৩ অপরাহ্ন রাজশাহী,বাংলাদেশ ।। ইংরেজীতে পড়ুন উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন Bengali Bengali English English
© All rights reserved © 2016-2021 24x7upnews.com - Uttorbongo Protidin