বিশেষ বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় সন্মানিত পাঠক, আপনি কি উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের নিয়মিত পাঠক? আপনি কি এই পত্রিকায় লিখতে চান? কেন নয় ? সমসাময়িক যেকোনো বিষয়ে আপনিও ব্যক্ত করতে পারেন নিজের চিন্তা, অভিমত, পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ। স্বচ্ছ ও শুদ্ধ বাংলায় যেকোনো একটি সুনির্দিষ্ট বিষয়ে  লিখে পাঠিয়ে দিতে পারেন ইমেইলে কিংবা ফোন করেও জানাতে পারেন আপনাদের।  আমাদের যে কোন সংবাদ জানানোর ৩টি মাধ্যম।🟥১। মোবাইল: ০১৭৭৭৬০৬০৭৪ / ০১৭১৫৩০০২৬৫ 🟥২। ইমেইল: upn.editor@gmail.com🟥৩। ফেসবুক : facebook.com/Uttorbongoprotidin  
আজ ১১ মে ২০২১ মঙ্গলবার ৫:২৯ অপরাহ্ন রাজশাহী,বাংলাদেশ ।। ইংরেজীতে পড়ুন উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন Bengali Bengali English English

নিজস্ব প্রতিনিধি,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন  :: বাংলাদেশে বিনোদন জগতের তারকাদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে ইন্টারনেট-ভিত্তিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম প্রায়ই সরগরম হয়ে উঠে।

তারকাদের একান্ত ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি কিংবা ভিডিও ফেসবুক এবং ইউটিউবে ছড়িয়ে যায়।

যেমনটা হয়েছে সুপরিচিত অভিনয়শিল্পী রাফিয়াত রশিদ মিথিলার ক্ষেত্রে। ইফতেখার আহমেদ ফাহমি নামের এক নাট্য পরিচালকের সাথে তার কিছু কথিত ছবি গত কয়েকদিন ধরেই ফেসবুকে ছড়িয়েছে এবং সেগুলো নিয়ে বিস্তর আলোচনা হচ্ছে।

বিষয়টি আমলে নিয়ে অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা সাইবার ক্রাইম ইউনিটে একটি অভিযোগও দায়ের করেছেন।

প্রশ্ন হচ্ছে তারকাদের ব্যক্তিগত জীবনকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে টেনে আনা কতটা সঙ্গত?

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক কাবেরি গায়েন মনে করেন, যে কোন নাগরিকের ব্যক্তিগত বিষয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে টেনে আনা শুধু আপত্তিকরই নয়, ফৌজদারি অপরাধও বটে।

“সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যক্তিগত জীবনকে টেনে এনে তাদেরকে মব জাস্টিসের দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। এতে তার জীবন দুর্বিসহ হয়ে উঠছে”, বলছিলেন অধ্যাপক গায়েন।

অনেকে যুক্তি তুলে ধরেন যে, তারকাদের জীবনে কী ঘটেছে সেটি নিয়ে মানুষের আগ্রহ আছে।

কাবেরি গায়েন প্রশ্ন তোলেন, তারা তো বিষয়গুলো জনসম্মুখে করছেন না। যে বিষয়গুলো তারা জনসম্মুখে করছেন না, সে বিষয়ে অন্যদের আগ্রহ থাকবে কেন?

“আমি কারো ব্যক্তিগত জীবনে হানা দিতে পারি কিনা?”

বিনোদন জগতের তারকাদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যেভাবে কাঁটা-ছেঁড়া চলছে সে বিষয়ে অনেকে ক্ষোভ এবং হতাশা প্রকাশ করেছেন।

সংগীত শিল্পী সোমনুর মনির কোনাল বলেন, তারকারা তাদের ব্যক্তিগত জীবনে কী করছে সেটি অন্যদের বিবেচ্য হওয়া উচিত নয়।

“পাবলিক ফিগার ও পাবলিক প্রপার্টি – দুটো আলাদা বিষয়। আমি হয়তো পাবলিক ফিগার হতে পারি, কিন্তু আমি পাবলিক প্রপার্টি না,” বলছিলেন কোনাল।

তিনি প্রশ্ন তোলেন, একজন মানুষ তার বেডরুমে কী করছে, রান্নাঘরে কী করছে, সেটা অন্যদের বিবেচ্য বিষয় হবে কেন?

 

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আজ ৭ নভেম্বর ২০১৯ বৃহস্পতিবার ১:৫০ পূর্বাহ্ন রাজশাহী,বাংলাদেশ ।। ইংরেজীতে পড়ুন উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন Bengali Bengali English English
© All rights reserved © 2016-2021 24x7upnews.com - Uttorbongo Protidin