স্টাফ রিপোর্টার,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন ::
দীর্ঘ ১৫ বছর পর পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজ আমদানি করছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের তাশো এন্টারপ্রাইজ নামের একটি প্রতিষ্ঠান পাকিস্তানের করাচির রোশান এন্টারপ্রাইজ থেকে ৩শ’ টনের বেশি পেঁয়াজ আমদানি করবে।

তাশো এন্টারপ্রাইজের কর্ণধার সেলিমুল হক চ্যানেল আই অনলাইনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক ‘দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনাল’ পত্রিকায় এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদনও ছাপা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির আদেশ পাওয়া গেছে। বাংলাদেশের প্রতিবেশী দেশ ভারতে বন্যার কারণে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ায় বিকল্প দেশ খুঁজছে বাংলাদেশ। এরই অংশ হিসেবে বাংলাদেশ পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজের আমদানি উদ্যোগ নিয়েছে।

প্রতিবেদনে পাকিস্তানের ট্রেড ডেভেলপমেন্ট অথরিটি অব পাকিস্তানের (টিডিএপি) একজন কর্মকর্তা বলেছেন, বাংলাদেশের তাসো এন্টারপ্রাইজ পাকিস্তানের করাচি ভিত্তিক রোশান এন্টারপ্রাইজ এর সাথে পেঁয়াজ আমদানির একটি চুক্তি সই করেছে। বাংলাদেশে কমপক্ষে ১২ কন্টেইনার পেঁয়াজ রপ্তানি করা হবে। প্রতি কনটেইনারে কমপক্ষে ২৮ টন পেঁয়াজ ধরে।

এ বিষয়ে তাশো এন্টারপ্রাইজের কর্ণধার সেলিমুল হক চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, হ্যাঁ, আমরা পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজ আমদানি করছি। অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই পেঁয়াজ এসে পৌঁছবে বাংলাদেশে। আমি ছাড়াও শ্যামবাজারের কয়েকজন আমদানিকারকও পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজ আমদানি করছে।

তবে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় পাকিস্তানেও পেঁয়াজের দাম বাড়ছে জানিয়ে এই পেঁয়াজ আমদানিকারক বলেন, আমরা যখন প্রথম অর্ডার দিয়েছিলাম পাকিস্তানে, তখন দাম কম ছিল। প্রথমে প্রতি টন ৪২০ ডলার করে বুকিং দিয়েছি। এর কয়েকদিন পর মানভেদে তা ৫শ’ ডলারের উঠে গেছে। তারপর এখন ৬শ ডলারে বুকিং দিতে হচ্ছে। এর কারণ হচ্ছে, ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ায় শ্রীলংকা এবং মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজ আমদানি বাড়িয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  • 548
  • 67
  • 50
  • 0
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    665
    Shares