রাজশাহীতে ছিনতাই হওয়া ৩৩ লাখ টাকাসহ ছিনতাইকারী আটক

স্টাফ রিপোর্টার,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন :: রাজশাহীর অলকার মোড়ে দিন-দুপুরে ৩৩ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আজ ১৮ জুন বৃহস্পতিবার নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা বালিয়া পঞ্চিম পাড়া সেন পুকুর এলাকার আব্দুল ওহাব ভিলা থেকে তাদের আটক করা হয়। এসময় ছিনতাই হওয়া টাকার মধ্যে ৩২ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে ।বৃহস্পতিবার রাত্রি ৮:৩০ মিনিটের সময় বোয়ালিয়া থানার সহকারী কমিশনার ফারজিনা নাসরিনের নেতৃত্বে থানার অফিসার ইনর্চাজ নিবারণ চন্দ্র বর্মন, এসআই মতিন, এসআই মোস্তাফা,এএসআই চঞ্চল, এ এস আই রানা আহম্মেদ, এ এস আই নাজমুলসহ সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা এ অভিযান পরিচালনা করে তাদের আটক করে।আটকরা হলেন, দারুশা এলাকার মিজানুর রহমানের ছেলে মেহেদি হাসান ফয়সাল, নওদাপাড়া এলাকার দুলাল হোসেনের ছেলে তাইজুল ইসলাম, গোদাগাড়ি এলাকার আক্তার হোসেনের ছেলে জাফর ইকবাল ।

প্রসঙ্গত, আজ ১৮ জুন বৃহঃপতিবার দুপুরে রাজশাহী নগরীর অলকার মোড়ে ৩৩ লাখ টাকা ছিনতাই করে পালিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা । রানীবাজার এলাকার ভিভো মোবাইল ডিলার ৩৩ লাখ টাকা নিয়ে ব্যাংকে জমা দেওয়ার উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন । পথিমধ্যে ব্যাংকে পৌছার পূর্বেই দু ছিনতাইকারী মোটরসাইকেলে এসে টাকার ব্যাগটি ছিনিয়ে নিয়ে চলে যায় ।

তৎক্ষণাত পুলিশ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত মাঠে নামে । এরপর বোয়ালিয়া থানা পুলিশ মাত্র ৫ ঘন্টার ব্যবধানে ছিনতাইকারীকে আটক করেন ও ছিনতাই হওয়া টাকা উদ্ধার করেন।

জানতে চাইলে বোয়ালিয়া থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মন বলেন, ঘটনার পর থেকে খোয়া যাওয়া টাকা উদ্ধারে অভিযানে নামে পুলিশ। রাত সাড়ে ৮টার দিকে কাশিয়াডাঙ্গা থানা এলাকা থেকে ৩২ লাখ টাকা উদ্ধার করা সম্ভব হয়। বাকি এক লাখ টাকা উদ্ধারে তৎপর রয়েছে পুলিশ।
ওসি নিবারন চন্দ্র বর্মণ জানান, ‘হ্যালো রাজশাহী-২’ নামে প্রতিষ্ঠানটির আওতায় বেশ কয়েকটি মোবাইল ফোন ও ইলেকট্রনিক কোম্পানির শো-রুম রয়েছে। এর মধ্যে ভিভো’র দু’জন বিক্রয়কর্মী বৃহস্পতিবার দুপুরে দু’টি ব্যাগে ৩৭ লাখ ৩৭ হাজার টাকা নিয়ে ব্যাংকে জমা করতে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে তাদের থেকে ৩৩ লাখ টাকা থাকা ব্যাগটি ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়।

ওসি বলেন, ছিনতাইয়ের ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরা দেখে ধারণা করা হচ্ছিল- এটা বিক্রয়কর্মীদেরই সাজানো ঘটনা। সেই সন্দেহ থেকে যাদের কাছ থেকে টাকা ছিনিয়ে নেওয়া হয়, ভিভো’র সেই দু’জন বিক্রয়কর্মীকে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে ‘হ্যালো রাজশাহী-২’ এর অন্য কোম্পানির শো-রুমের একজন বিক্রয়কর্মীকে আটক করা হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।