এবার রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের রোষানলে রাজশাহী মহানগর ডিবির এসআই হাসান

Read Time:4 Minute

রমজান আলী, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন :: অসংখ্যা নাশকতা মামলার আসামী যুদ্ধাপরাধী সংগঠন জামাত- শিবিরসহ নাশকতার একাধিক মামলার বাদী, সাক্ষী ও তদন্তকর্মকর্তা হয়েছেন রাজশাহী মহানগর ডিবির এসআই হাসান।সেই সাথে মাদক বিরোধী অভিযানেও সফলতার শীর্ষে ছিলেন তিনি।

বিশেষ করে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের সকল থানার পাশাপাশি রাজশাহী মহানগর ডিবির এসআই হাসান ছিলেন জঙ্গী ও মাদক নির্মূলে শক্ত অবস্থানে। রহমান জুট মিলের ছিনতাই হওয়া ১৭লাখ টাকার ডাকাতি মামলা তদন্তে পান সফলতা,উম্মোচন করেন সঠিক রহস্য,গ্রেফতার করেন নিষিদ্ধ সংগঠন জেএমবি’র সক্রিয় সদস্য এদের বিরুদ্ধে আদালতে দাখিল করেন অভিযোগপত্র।

রাজশাহীতে নাশকতা মামলার আসামী জামাত – শিবিরের কেন্দ্রীয় নেতা থেকে শুরু করে মাঠ পর্যায়ের সদস্যরাও ছাড় পাননি এসআই হাসানের হাত থেকে।যুদ্ধাপরাধী ট্রাইবুনালে সাজা পাওয়া রাজশাহীর পলাতক কুখ্যাত টিপু রাজাকারকেও গ্রেপ্তার করে আদালতে বিচারের সম্মুখীন করেন এস আই/হাসান।যে কারনে বাংলাদেশ পুলিশের অন্যত্তম পদক আইজিপি ব্যাচ ২০২০ প্রাপ্ত হন এসআই হাসান।

বিশেষ করে জাল টাকা উদ্ধার, কাস্টমস কর্মকর্তার বাড়ী থেকে নিয়োগ বানিজ্যের টাকা উদ্ধার,হাজার হাজার পিচ ইয়াবা উদ্ধার,নাশকতার মামলার পলাতক আসামী মহানগর শিবির সভাপতি মন্জুরকে অস্ত্র সহ গ্রেপ্তার, কেন্দ্রীয় জামায়তের ভারপ্রাপ্ত আমির মুজিবুর রহমানকে জিহাদি বইসহ গ্রেপ্তার,সম্প্রতি রুয়েট শিক্ষকে হামলার মূল তিন আসামী গ্রেপ্তার, রাজশাহী পলেটেকনিক্যালে শিক্ষককে পুকুরে ফেলে দেয়া মামলায় ২৪ ঘন্টায় আসামী গ্রেফতার, মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর ছিনতাইকৃত টাকা উদ্ধারসহ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বেড়ে যাওয়া ছিনতাই প্রতিরোধে ব্যবস্থা গ্রহণ ছিল অত্যন্ত প্রশংসিত।

এই ধারাবাহিকতায় আরএমপির শ্রেষ্ঠ এসআই হিসেবে রাজশাহীর মাননীয় পুলিশ কমিশনারের কাছ থেকে বারংবার পুরস্কার গ্রহণ করে রাজশাহী মহানগর ডিবি।

এই ধারাবাহিক সফলতাকে কলংকিত করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে বর্তমান সরকার বিরোধী জামাত- শিবির নিয়ন্ত্রিত একটি চক্র। এই চক্রে আছে মাদক ব্যবসায়ী,হুন্ডির গড- ফাদার, র‍্যাবের হাতে বারংবার গ্রেফতার হওয়া সন্ত্রাসী ও সাথে প্রশাসনেও ঘাপটি মেরে থাকা সরকার বিরোধী কিছু সক্রিয় সদস্য।

এই সকল চক্র রাজশাহীর বিভিন্ন পত্রিকা অফিসে গিয়ে রাজশাহী মহানগর ডিবির এসআই হাসানকে কলংকিত করার জন্য নামে-বেনামে অভিযোগ জমা দিচ্ছে। যা মিডিয়াকে পথভ্রষ্ট করার নামান্তর।

অভিযোগে এমনও বলা হয়েছে এসআই হাসানের টিম কোন এক মহিলা আসামীকে ৩ ধরে আটকে রেখে ধর্ষন করে মাদক মামলায় চালান দেয়।

অবশ্য এই সকল রুপকথার অভিযোগকারীর বেশীর ভাগই হয় মাদক ব্যবসায়ী নতুবা সরকার বিরোধী একটি সক্রিয় চক্র।

এদিকে রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র এডিসি রুহুল বলেন, বিগত দিনে আমরা এসআই হাসানের বিরুদ্ধে কোন ধরনের কোন অভিযোগ পাইনি কিন্তু যদি এই ধরনের ঘটনা ঘটে তবে  তদন্ত সাপেক্ষে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  • 388
  • 233
  • 286
  • 277
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1.2K
    Shares

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।