রাজশাহী কারাগারে ধর্ষণের শিকার নারীর সঙ্গে কয়েদির বিয়ে

Read Time:2 Minute

রাজশাহী কারাগারে ধর্ষণের শিকার নারীর সঙ্গে কয়েদির বিয়েস্টাফ রিপোর্টার, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন :: রাজশাহীতে ধর্ষণ মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত কয়েদির সঙ্গে ধর্ষণের শিকার এক নারীর বিয়ে হয়েছে। জ্যেষ্ঠ কারা সুপার সুব্রত কুমার বালা জানান, আদালতের নির্দেশে শনিবার দুপুরে কারা ফটকে এই বিয়ে হয়। এ সময় তাদের নয় বছর বয়সী ছেলে উপস্থিত ছিল।

বিয়ের শর্ত পূরণের মাধ্যমে সাজাপ্রাপ্ত ওই ব্যক্তির জামিন পাওয়ার কথা রয়েছে।

মামলার নথি থেকে জানা গেছে, এই দুইজনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। তরুণী ২০১১ সালে গর্ভবতী হলে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানান ওই ব্যক্তি। ওই বছরের ২৫ অক্টোবর গোদাগাড়ী থানায় তিনি ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন।

২০১২ সালের ১২ জুন রাজশাহীর নারী ও শিশুনির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ওই ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেয়। এরপর থেকে সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি কারাগারেই ছিলেন।

চলতি বছরে উচ্চ আদালতে আসামির জামিনের আবেদন করা হয়। গত ২২ অক্টোবর বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের বেঞ্চ কারাফটকে তাদের বিয়ের আদেশ দেয়।

কারা সুপার বলেন, আদালতের নির্দেশে এই বিয়ের আয়োজন করা হয়। বেলা ১২টার দিকে উভয়পক্ষের ১৪ জন জেলগেটে এলে তাদের কারা সুপারের কক্ষে বসানো হয়। সাদা পাঞ্জাবি পরে জানালার পাশে এসে দাঁড়ান বর। জানালার অপর পাশে তার ছেলেকে দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয়। বন্দি বাবা হাসিমুখেই বিয়ের নিবন্ধন খাতায় সই করেন। এ সময় পুরোহিত বিয়ের মন্ত্র পাঠ করেন। পরে মালাবদল ও সিঁদুর লাগিয়ে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করা হয়।

তিনি বলেন, ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিয়ে হয়েছে। অতিথি ও কর্মচারীদের মিষ্টিমুখেরও ব্যবস্থা করা হয়। বিয়ের প্রতিবেদন দ্রুতই আদালতে পাঠানো হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  • 676
  • 342
  • 212
  • 90
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1.3K
    Shares

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।