বিশেষ বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় সন্মানিত পাঠক, আপনি কি উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের নিয়মিত পাঠক? আপনি কি এই পত্রিকায় লিখতে চান? কেন নয় ? সমসাময়িক যেকোনো বিষয়ে আপনিও ব্যক্ত করতে পারেন নিজের চিন্তা, অভিমত, পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ। স্বচ্ছ ও শুদ্ধ বাংলায় যেকোনো একটি সুনির্দিষ্ট বিষয়ে  লিখে পাঠিয়ে দিতে পারেন ইমেইলে কিংবা ফোন করেও জানাতে পারেন আপনাদের।  আমাদের যে কোন সংবাদ জানানোর ৩টি মাধ্যম।🟥১। মোবাইল: ০১৭৭৭৬০৬০৭৪ / ০১৭১৫৩০০২৬৫ 🟥২। ইমেইল: upn.editor@gmail.com🟥৩। ফেসবুক : facebook.com/Uttorbongoprotidin  
আজ ৪ মে ২০২১ মঙ্গলবার ৯:২৭ অপরাহ্ন রাজশাহী,বাংলাদেশ ।। ইংরেজীতে পড়ুন উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন Bengali Bengali English English

ঢাকায় লাশের মিছিলের চাপে ভেকু দিয়ে খোঁড়া হচ্ছে কবর স্টাফ রিপোর্টার,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন

ঢাকায় লাশের মিছিলের চাপে ভেকু দিয়ে খোঁড়া হচ্ছে কবর
ঢাকায় লাশের মিছিলের চাপে ভেকু দিয়ে খোঁড়া হচ্ছে কবর

করোনার কারণে চাপ বেড়েছে কবরস্থানেও। কবর খুঁড়ে কুল পাচ্ছেন না কবরস্থানের কর্মীরা। চাপ সামলাতে তাই চলছে মেশিন দিয়ে কবর খোঁড়ার কাজ।

দীর্ঘদিন ধরে কবরস্থানে গোর খোদকের কাজ করা কর্মীরা বলছেন, এমন মৃত্যুর র্দীঘ মিছিল তারা কখনই দেখেননি। রাজধানীর রায়েরবাজারের কবরস্থানে দেখা মেলে এমন চিত্রের। সনাতন পদ্ধতিতে কবর খুঁড়ে আর কুলোচ্ছিলো না গোর খোদকদের। তাই তো আনতে হয়েছে আধুনিক মাটিকাটা যন্ত্র। যা দিয়ে অল্প সময়ে অনেক কবর খুঁড়তে পারছেন তারা।

 

কবরস্থানে প্রবেশ করলে দেখা যাবে সারি সারি নতুন কবর খুঁড়ে রাখা হয়েছে। দেখে মনে হবে যেন যুদ্ধবিদ্ধস্ত কোনো দেশের চিত্র। করোনা সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুর মিছিলে প্রতিদিন যোগ হচ্ছেন বহু মানুষ। গোর খোদকদের কাছে এ যেন নীরব যুদ্ধের সৈনিক হিসেবে লড়াই করে যাওয়া। যুদ্ধের মাঠে পরাজিত মানুষদের মাটি দেয়াই তাদের কাজ।

রায়ের বাজারের গোর খোদকরা বলছেন, করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে মৃত্যু বেড়েছে বহুগুণ। প্রতিদিন যে পরিমাণ মরদেহ আসছে, তাতে আর শাবল-কোদাল দিয়ে সনতনী পদ্ধতিতে কবর খুঁড়ে কুল পাচ্ছেন না তারা। তাই আশ্রয় নিতে হচ্ছে এমন মাটিকাটা যন্ত্রের। আগে প্রতিদিন যে কয়টি কবর খুঁড়তে হতো তার চেয়ে এখন ৪০ থেকে ৫০টি কবর বেশি খুঁড়তে হচ্ছে।

এদিকে কবরস্থানে প্রতিদিনই বাড়ছে স্বজন হারানো মানুষের আর্তনাদ। কবরের টালি খাতায় স্বজনদের নামের তালিকা বেড়েই চলেছে। অনেকে প্রিয় স্বজনের শেষ বিদায় উপস্থিত না থাকতে পারার অপরাধবোধ আর গোপন কষ্ট প্রকাশ করছেন স্বজনের কবরের কাছে এসে।

সময় পরিক্রমায় হয় তো স্বজনের কবরের পাশে লাগানো নাম ফলকটিও চলে যাবে। একই কবরে ঠাঁই হবে অন্য কোনো মানুষের লাশ। কিন্তু হারিয়ে যাওয়া মানুষগুলোর স্মৃতি থেকে যাবে বেঁচে যাওয়া স্বজনদের হৃদয়ে। একদিন হয়তো এই মহামারি চলে যাবে। কিন্তু চলে যাওয়া স্বজনদের শূন্যতা কাঁদাবে আজীবন।

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  • 596
  • 285
  • 236
  • 184
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1.3K
    Shares


আজ ১৯ এপ্রিল ২০২১ সোমবার ১১:১৭ অপরাহ্ন রাজশাহী,বাংলাদেশ ।। ইংরেজীতে পড়ুন উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন Bengali Bengali English English
© All rights reserved © 2016-2021 24x7upnews.com - Uttorbongo Protidin