বিশেষ বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় সন্মানিত পাঠক, আপনি কি উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের নিয়মিত পাঠক? আপনি কি এই পত্রিকায় লিখতে চান? কেন নয় ? সমসাময়িক যেকোনো বিষয়ে আপনিও ব্যক্ত করতে পারেন নিজের চিন্তা, অভিমত, পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ। স্বচ্ছ ও শুদ্ধ বাংলায় যেকোনো একটি সুনির্দিষ্ট বিষয়ে  লিখে পাঠিয়ে দিতে পারেন ইমেইলে কিংবা ফোন করেও জানাতে পারেন আপনাদের।  আমাদের যে কোন সংবাদ জানানোর ৩টি মাধ্যম।🟥১। মোবাইল: ০১৭৭৭৬০৬০৭৪ / ০১৭১৫৩০০২৬৫ 🟥২। ইমেইল: upn.editor@gmail.com🟥৩। ফেসবুক : facebook.com/Uttorbongoprotidin  
আজ ৪ মে ২০২১ মঙ্গলবার ৯:২৭ অপরাহ্ন রাজশাহী,বাংলাদেশ ।। ইংরেজীতে পড়ুন উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন Bengali Bengali English English

বাগমারায় জ্বীন নয় সৎ মা মেরে ফেলেছে শিশু মারুফকে বাগমারা প্রতিনিধি,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন

বাগমারায় জ্বীন নয় সৎ মা মেরে ফেলেছে শিশু মারুফকে
বাগমারায় জ্বীন নয় সৎ মা মেরে ফেলেছে শিশু মারুফকে

শিশু মারুফ হাসানকে (৭) জ্বীনে মেরে ফেলেছে বলে প্রচার করে লাশ দাফনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল। তার আগেই পুলিশ এসে কাফনের কাপড়ে মোড়ানো লাশটি উদ্ধার করে। সন্দেহজনক হওয়ায় পুলিশ শিশুর বাবা, সৎমা ও দুই চাচাকে থানায় নিয়ে আসে। জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পেরেছে, বালিশ চাপা দিয়ে মারুফকে হত্যা করে ‘জ্বীনের ওপর’ দায় চাপানোর চেষ্টা করা হয়েছিল।

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার শুভডাঙ্গা ইউনিয়নের বিনোদপুর গ্রামের এ ঘটনা ঘটেছে। শিশুটির বাবা শাহাজাহান আলী (৪৫) ও সৎমা মুক্তা বেগমকে (২৫) গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। এর আগে গতকাল শুক্রবার রাতে শিশুর মা মারুফা বেগম বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বাগমারা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সৈবুর রহমান উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনকে বলেন, পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সৎমা মুক্তা বেগম হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে নিজের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। স্বামীর সহযোগিতায় গতকাল ভোররাতে বালিশ চাপা দিয়ে শিশু মারুফ হাসানকে তিনি হত্যা করেন বলে জানিয়েছেন। শিশু মারুফ দুষ্টুমি করে—এটা তিনি মানতে পারছিলেন না। এসব ক্ষোভ থেকে শিশুকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন।

এসআই সৈবুর রহমান বলেন, খুনের পর লাশ রেখে বাবা অন্যের পান বরজে কাজ করার জন্য যান। শিশুটি মাঝেমধ্যে অস্বাভাবিক আচরণ করার সুযোগ নিয়ে তাকে জিনে মেরে ফেলেছে বলে প্রচারণা চালিয়ে নিজেদের রক্ষার চেষ্টা করেন। পুলিশ ১৬১ ধারায় তাঁর জবানবন্দি তালিকাভুক্ত করেছে।

গতকাল দুপুরে বাগমারা থানার পুলিশ উপজেলার শুভডাঙ্গা ইউনিয়নের বিনোদপুর গ্রাম থেকে কাফনের কাপড়ে মোড়ানো শিশু মারুফ হাসানের লাশ উদ্ধার করে। শিশু মারুফ হাসানকে জিনে মেরে ফেলেছে বলে প্রচার করা হয়। দ্রুত লাশ দাফনের ব্যবস্থা করেন বাবা ও সৎ মা।

লোকজনও জানাজায় আসেন। খবর পেয়ে শিশুর মা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে বিপত্তি বাধে। তিনি ছেলে মারুফ হাসানকে হত্যার অভিযোগ তোলেন। পরে পুলিশও ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তারা লাশের সঙ্গে শিশুর বাবা, সৎ মা ও দুই চাচাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যায়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাতে দুই চাচাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে শিশুর মা মারুফা বেগম বাদী হয়ে সাবেক স্বামী ও সতিনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।

বাগমারা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আফজাল হোসেন উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনকে বলেন, মুক্তা বেগম খুব চতুর। তিনি সতিনের ছেলেকে মেনে নিতে পারছিলেন না। শিশুকে হত্যার পর জ্বীনে মেরে ফেলার নাটক সাজিয়ে নিজেদের রক্ষার চেষ্টা করেন। ঘটনার পর বাবা ও সৎমা অস্বাভাবিক হয়ে পড়েন। এতে পুলিশের সন্দেহ হয়। তবে অল্প সময়ের মধ্যেই পুলিশ মোটিভ উদ্ধার ও আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  • 291
  • 166
  • 121
  • 90
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    668
    Shares


আজ ১ মে ২০২১ শনিবার ৪:৪৫ অপরাহ্ন রাজশাহী,বাংলাদেশ ।। ইংরেজীতে পড়ুন উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন Bengali Bengali English English
© All rights reserved © 2016-2021 24x7upnews.com - Uttorbongo Protidin