আদালত প্রাঙ্গণে অঝোরে কাঁদলেন আনিসুল হক সাংবাদিক রোজিনা ট্রাজেডি

স্টাফ রিপোর্টার।। উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন।।  আদালত প্রাঙ্গণে অঝোরে কাঁদলেন প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক ও কথা সাহিত্যিক আনিসুল হক। নিজের সহকর্মী প্রথম আলোর সিনিয়র রিপোর্টার রোজিনা ইসলামকে জামিন না দিয়ে কারাগারে পাঠানোর পর আদালত প্রাঙ্গণে শিশুর মতো কাঁদতে দেখা যায় তাকে।

রোজিনার জামিন নামঞ্জুর হওয়ার কথা শুনে বিমর্ষ হয়ে পড়েন আনিসুল হক। ভিড় থেকে কিছুটা আড়ালে গিয়ে বসে পড়েন তিনি। এক পর্যায়ে আবেগতাড়িত হয়ে কেঁদে ফেলেন তিনি। তাকে কাঁদতে দেখে সহকর্মীসহ অনেকেই আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। রোজিনাকে সোমবার রাতে শাহবাগ থানা পুলিশে হস্তান্তর করা হলে তখন থেকেই সেখানে অবস্থান করেন আনিসুল হক।

দীর্ঘ সময় সেখানে অবস্থানকালে গণমাধ্যমকর্মীদের সাথে আলাপে তিনি বলেন, সংবাদপত্র হলো রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ। একে স্বাধীনভাবে চলতে না দেয়া হলে রাষ্ট্র ও গণতন্ত্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তবে মামলা যখন হয়েছে তখন আইনি প্রক্রিয়ায় বিষয়টি দেখবো আমরা।

তিনি আরো বলেন, রোজিনাকে সচিবালয়ে কয়েক ঘণ্টা আটকে রাখা হয়। এদিনই রোজিনা করোনার দ্বিতীয় ডোজের টিকা নেন। কয়েক ঘণ্টা আটকে রাখার ফলে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। ঘরে তার ছোট্ট একটি মেয়ে রয়েছে। কারো জিম্মায় যেন তাকে রাতের জন্য মুক্তি দেয়া হয়। সকালে আদালতে নিয়ে যাওয়া হোক। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সমর্থক হিসেবে তিনি সাংবাদিক রোজিনার মুক্তিও দাবি করেন।

কিন্তু সরকারের কোনো মহল থেকে ইতিবাচক সাড়া না পেয়ে হতাশ হন আনিসুল হক। মঙ্গলবার রোজিনাকে আদালতে তোলা হবে জেনে সকালেই আনিসুল হক ছুটে আসেন পুরান ঢাকার আদালত প্রাঙ্গণে। আদালতে তোলার সময়ও জামিনের ব্যাপারে আশাবাদী ছিলেন তিনি; কিন্তু সহকর্মীর জামিন না হওয়ায় মুষড়ে পড়েন তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  • 375
  • 184
  • 163
  • 116
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    838
    Shares

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।