রাজশাহী পবায় ছাত্রলীগ নেতা সালাউদ্দীনের নির্যাতনের শিকার তরুনীর মামলা

রাজশাহী পবায় ছাত্রলীগ নেতা সালাউদ্দীনের নির্যাতনের শিকার তরুনীর মামলা এবার হোটেল ষ্টারে তরুনী ধর্ষন

রাজশাহী পবা থানা এলাকায় বিউটি (২৫)নামের এক তরুনীকে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অবশ্য রাজশাহী পবা উপজেলার বড়গাছী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ছাত্রলীগ সভাপতি সালাউদ্দিন আহম্মেদ কর্তৃক যে ঐ তরুনী ধর্ষনের শিকার হয়েছেন তা স্পস্ট ভাবেই জানিয়েছেন এই তরুনী।

সালাউদ্দিন আহম্মেদের নাম ঠিকানা ও পরিচয় নিশ্চিৎ করে ঐ তরুনীসহ স্থানীয় এলাকাবাসীর সাংবাদিকদের জানান- রাজশাহী পবা উপজেলার বড়গাছী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ছাত্রলীগ সভাপতি সালাউদ্দিন আহম্মেদ একজন ক্ষমতাশালী ছাত্রলীগ নেতা। তিনি সম্প্রতি সময়ে বড়গাছী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পদে যাওয়ার জন্য শুরু করেছিলেন রাজনৈতিল লবিং গ্রুপিং।
এই রাজনৈতিক কর্মকান্ডের মাঝেই তার সাথে পরিচয় ঘটে একই এলাকার বিউটির সাথে। এসময় লম্পট ছাত্রলীগ নেতা সালাউদ্দিন বিয়ের প্রস্তাব দেন বিউটিকে।এতে বিউটি রাজীও হোন।

এরপর চলতি বছরের ১ম রমজানে রাজশাহী নওদাপাড়ায় অবস্থিত হোটেল স্টার ইন্টারন্যাশনালে বিউটিকে নিয়ে যান সালাউদ্দিন তার ঢাকা থেকে আগত এক নানার সাথে পরিচয় করে দেয়ার জন্য। কিন্তু হোটেল স্টারের রুমে যাওয়ার পর বিউটি কাউকে দেখতে না পেয়ে হোটেল থেকে চলে আসার চেষ্টা করলে এ সময় অনেকটা জোরপূর্বক বিউটিকে ধর্ষন করেন ছাত্রলীগ সভাপতি সালাউদ্দিন। এরপর সালাউদ্দিন বিউটিকে বলেন- আমরা ২/১ দিনের মধ্যে বিয়ে করব।এত টেনশনের কিছুই নেই। এরপরে একইভাবে স্টার হোটেলে আরো ২ বার ধর্ষিত হোন তরুনী বিউটি।এর মধ্যে বিয়ের খরচ ও মোটরসাইকেল কেনার জন্য বিউটির কাছে ৩ লাখ টাকা ধার চাইলে স্বেচ্ছায় বিউটি ব্যাংক ও এনজিও থেকে লোন করে ৩ লাখ টাকা দেন।

কিন্তু টাকা নেয়ার কয়েকদিন পর থেকে মতি গতির পরিবর্তন ঘটে সালাউদ্দিনের। সালাউদ্দিন এর মধ্যে নতুন ১ টি মোটরসাইকেলসহ নিজ এলাকায় একটি চেম্বারও খুলে বসেন। শুধু তাই নয় উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি হওয়ার জন্য তিনি আগাম সবাইকে জানিয়ে দিয়ে মিষ্টিও বিতরন করেন।

এদিকে বিউটি সালাউদ্দীনকে বিয়ের কথা বললেই বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার চেস্টা করতে থাকে সালাউদ্দিন। এক পর্যায়ে বিউটি আত্মহত্যার চেস্টা পর্যন্ত করেন।উপায়ন্তর না দেখে বিউটি অবশেষে থানার স্মরনাপন্ন হওয়ার চেস্টা করলে সালাউদ্দিন তার লালনকৃত গুন্ডা পান্ডাসহ বিউটিকে বাড়ির ভেতরে অবরুদ্ধ করার চেস্টা করেন এবং নিজেকে আত্মগোপন করে বিউটির আপন ভাই জাফরকে মামলায় ফাঁসানোর চেস্টা পর্যন্ত করেন।

কোন উপায়ন্তর না দেখে বিউটি অবশেষে ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে বিস্তারিত ঘটনা খুলে বলেন। এরপরই রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিকের দিক নির্দেশনায় পবা থানা অবরুদ্ধ বিউটিকে তার বাড়ি থেকে পুলিশ হেফাজতে নেয়।

পুলিশ হেফাজতে বিউটি পুলিশকে ও উপস্থিত সাংবাদিকবৃন্দের সামনে সকল ঘটনার বর্ননা দেন।

এরপরে রাতেই রাজশাহী পবা থানায় বড়গাছী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ছাত্রলীগ সভাপতি সালাউদ্দিন আহম্মেদের নামে একটি ধর্ষন মামলা দায়ের হয়। যাহার মামলা নং ৩ তারিখ- ০২/০৬/২০২১

এদিকে সার্বিক বিষয়ে ছাত্রলীগ নেতা সালাউদ্দিন আহম্মেদের সাথে তার ব্যবহীত 01713694336 নাম্বারে যোগাযোগ করার চেস্টা করা হলে তার মুঠো ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  • 1.2K
  • 1.6K
  • 1K
  • 1.7K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    5.5K
    Shares

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।