রাজশাহী কাশিয়াডাঙ্গা জোনের ডিসি আরেফিন জুয়েলের নয়া উদ্যোগ

স্টাফ রিপোর্টার,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন : রাজশাহী মহানগরীর ভেতর সবচেয়ে বেশি মাদকপ্রবণ মহল্লার নাম গুড়িপাড়া। শহরের পশ্চিমপ্রান্তের এ মহল্লায় হাত বাড়ালেই মেলে সব ধরনের মাদক। তবে এই মহল্লাকে মাদকমুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কাশিয়াডাঙ্গা জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার আরেফিন জুয়েল।

তিনি বলেছেন, গুড়িপাড়া মাদকমুক্ত হবে। এর নামও পরিবর্তন হবে। গুড়িপাড়া নামে কোন মহল্লা থাকবে না। এই মহল্লায় যারা বাস করবে তারা কেউ মাদকের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকবে না।

বৃহস্পতিবার সকালে  নম্বর ওয়ার্ডে বিট পুলিশিং কার্যালয়ের উদ্বোধন উপলক্ষে গোলজারবাগ ঈদগাহ মাঠে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, আমি এলাকায় নতুন। আসার পর শুনছি এখানে শুধু মাদক। তবে সব পরিবার নয়। ৪০০ পরিবার থাকলে ৪০টি পরিবার মাদকের সঙ্গে সম্পৃক্ত। এর ফলে এলাকার বদনাম হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, মহল্লার মানুষ এখন গুড়িপাড়া নাম পরিবর্তন করতে চাইছেন। কিন্তু শুধু মহল্লার নাম পরিবর্তন করলে হবে না, নিজেদের পরিবর্তন করতে হবে। নিজেদের সমাজটাকে পরিবর্তন করতে হবে। পুলিশকে সঠিক তথ্য দিয়ে সহায়তা করতে হবে। সবার সহযোগিতায় আমরা এলাকাটিকে মাদকমুক্ত করতে চাই। সেটি সম্ভব হলেই গুড়িপাড়ার নাম পরিবর্তন করা হবে।

সমাবেশে বক্তব্য দেন রাজশাহী মহানগর যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক নাহিদ আক্তার নাহান। তিনি বলেন, গুড়িপাড়ার নাম বললে মানুষ আমাদের দিকে তাকাই। এটা আমাদের জন্য লজ্জার, অপমানের। এ অপমান আর সহ্য হয় না। তাই আমরা এলাকাকে মাদকমুক্ত করার জন্য পুলিশকে সব ধরনের সহযোগিতা করব। তবে পুলিশ যেন কোন ভাল মানুষকে হয়রানি না করে।

এ সময় নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম মাসুদ পারভেজ, কেশবপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মিজানুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বিট পুলিশ কার্যালয়ের উদ্বোধন শেষে উপকমিশনার আরেফিন জুয়েল মহল্লায় গন্য-মান্য ব্যক্তিবর্গের সহিত মাদক বিরোধী অভিযান, মাস্ক বিতরন ও মাদক বিরোধী লিফলেট বিতরণ করেন। এছাড়াও তিনি এলাকার মাদক ব্যবসায়ীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে মাদক ব্যবসা ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্য অনুরোধ জানান।

প্রচারপত্রে লেখা ছিল, ‘জীবন একটাই তাকে ভালোবাসুন। মাদক থেকে দূরে থাকুন’।

উল্লেখ্য যে, আরেফিন জুয়েল অতিরিক্ত উপ-কমিশনার হিসেবে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) পদন্নোতি পেয়ে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশে সম্প্রতি যোগদান করেন। এদিকে উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের চট্রগ্রাম প্রতিনিধি জানান – চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশে মাদক উদ্ধার,ইভটিজিং এবং সন্ত্রাস নির্মূলে বিশেষ ভূমিকা রাখায় আরেফিন জুয়েল প্রশংসিত হয়েছেন বারংবার।

এদিকে রাজশাহী কাশিয়াডাঙ্গা জোনের ডিসি আরেফিন জুয়েলের নয়া উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে সুধী মহলের একাধীক ব্যাক্তি বলেছেন –
একটি ভাল উদ্যোগই পরিবর্তন আনতে পারে আমাদের এই সমাজের। তাই রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের এই নয়া উদ্যোগকে আমরা সাধুবাধ জানাই।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন-
  • 232
  • 121
  • 97
  • 23
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    473
    Shares

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

bn_BDবাংলা