আজ টানেলের যুগে প্রবেশ করবে বাংলাদেশ

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনে প্রকাশিত সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  • 385
  • 296
  •  
  • 484
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1.2K
    Shares

স্টাফ রিপোর্টার, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন ::
সব ধরনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটেছে। অবশেষে ঘোষিত সময়ের একদিন আগেই কর্ণফুলীর তলদেশ দিয়ে বহুল প্রত্যাশা ও স্বপ্নের বঙ্গবন্ধু টানেলের (সুড়ঙ্গ পথ) দ্বিতীয় টিউবের খনন কাজ (এক্সকাভেশন ওয়ার্ক) শেষ হয়ে খুলে গেছে মুখ।

কর্ণফুলী নদীর উভয়প্রান্তে চারমুখ নিয়ে টানেলের দুটি টিউব প্রতিষ্ঠা হলো। গত ৫ অক্টোবর একনেকের সভায় পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান ৮ অক্টোবর নাগাদ দ্বিতীয় টিউবের খনন কাজ শেষ হয়ে মুখ খুলে যাওয়ার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছিলেন। কিন্তু তার আগেই চ্যালেঞ্জিং এ প্রকল্পের মহাপ্রাপ্তি। প্রকল্পটির ৭৩ শতাংশ কাজ ইতোমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ঘড়ির কাঁটা ঠিক দুপুর সাড়ে ১২টা। ২২শ’ টন ওজনের টিবিএম (টানেল বোরিং মেশিন)-এর সম্মুখভাগ কর্ণফুলী নদীর তলদেশ হয়ে চট্টগ্রাম শহরের পতেঙ্গা পয়েন্ট দিয়ে বেরিয়ে এলে মূল খনন কাজের অবসান ঘটে। এর ফলে ২৪৫০ মিটার দূরত্বের চার লেনের প্রথমটির পর দ্বিতীয় টিউব খননের মূল চ্যালেঞ্জিং কাজ সম্পন্ন হলো।

চট্টগ্রাম শহরের উত্তরপাড় পতেঙ্গা থেকে কর্ণফুলী নদীর দক্ষিণ পাড় আনোয়ারা উপজেলা পয়েন্টের সঙ্গে দুটি টিউবের সংযোগ স্থাপিত হলো। এর পর আরও নানা কর্মযজ্ঞ রয়েছে। শেষ কর্মটি হবে যান চলাচল উপযোগী করা।

প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী হারুনুর রশীদ চৌধুরী জানিয়েছেন, বিশাল আকৃতির টিবিএমের সম্মুখভাগ পতেঙ্গা পয়েন্টে দ্বিতীয় টিউবের খননপর্ব যখন শেষ করে তখন দেশী-বিদেশী প্রকৌশলী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে আনন্দের বন্যা বয়ে যায়।


উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনে প্রকাশিত সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  • 385
  • 296
  •  
  • 484
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1.2K
    Shares